বাংলাদেশের বিভাগ কয়টি ও কী কী? বিস্তারিত জেনে নিন।

বাংলাদেশ


বাংলাদেশের সর্বপ্রথম বিভাগ গঠন করা হয় ব্রিটিশ শাসন সময়কালীন বাংলা প্রদেশে। কিন্তু তখন আজকের মত এই ৮টি বিভাগ ছিল না। তখন বর্তমান বাংলাদেশের মাত্র ৩টি বিভাগ গঠন করা হয়। আসুন, নিচে এ সম্পর্কে বিস্তারিত জানা যাক।

বাংলাদেশের বিভাগ গঠনের ইতিহাস

সে সময়ে বাংলাদেশে বিভাগ মাত্র ৩টি ছিল এবং সেগুলো হলো – ঢাকা, চট্টগ্রাম ও রাজশাহী।

তারপরে, ১৯৬০ সালে ঢাকা ও রাজশাহী বিভাগের একাংশ নিয়ে খুলনা বিভাগ গঠিত হয়। সবমিলিয়ে বাংলাদেশে এই ৪টি বিভাগ হলো।

এরপর, ১৯৯৩ সালে খুলনা বিভাগের একাংশ নিয়ে গঠিত হয় বরিশাল বিভাগ। পরবর্তী সময়ে, চট্টগ্রাম বিভাগকে বিভক্ত করে সিলেট বিভাগ গঠিত হয় ১৯৯৮ সালে।

অতঃপর, বাংলাদেশের রংপুর ও দিনাজপুর অঞ্চল নিয়ে ২০১০ সালে রংপুর বিভাগ গঠিত হয়, যেটি ইতোপূর্বে রাজশাহীর আন্ডারে ছিল।

সর্বশেষ, ঢাকা বিভাগকে ভেঙে বাংলাদেশের শেষ বিভাগ হিসেবে ময়মনসিংহ বিভাগ গঠন করা হয় ২০১৫ সালে (৮ম বিভাগ)।

এখন আরও দুটি বিভাগ গঠনের প্রস্তাবনা রয়েছে। সেগুলো হলো – কুমিল্লা বিভাগ ও পদ্মা বিভাগ।

যেহেতু এই দুটি বিভাগ প্রস্তাবিত, তাই এখনও এ সম্পর্কে স্বচ্ছ ধারণা পাওয়া যাচ্ছেনা। ইন্টারনেটে অনেক গুজব দেখা যায়। আমরা যেটুকুর সত্যটা পেয়েছি, তা শেয়ার করতেছি….

বাংলাদেশের প্রস্তাবিত নবম হবে কুমিল্লা বিভাগ, যার নাম হতে পারে ময়নামতি বা কুমিল্লা বিভাগ।

অপরদিকে, বাংলাদেশের ১০ম বিভাগ হতে পারে পদ্মা বিভাগ। ইন্টারনেটের তথ্য অনুসারে – ফরিদপুর, মাদারীপুর, রাজবাড়ী, গোপালগঞ্জ ও শরীয়তপুর এই পাঁচটি জেলা নিয়ে পদ্মা বিভাগ নামে প্রতিষ্ঠিত হবে। যেটির সদর দপ্তর হবে হচ্ছে ফরিদপুর এ।

বাংলাদেশের বিভাগ কয়টি ও কী কী?

বাংলাদেশের বিভাগ কয়টি ও কি কি তা আমরা উপরেই বলেছি। আরও ভালোভাবে মনে রাখার জন্য, নিচে সিরিয়াল অনুযায়ী লিখছি।

বাংলাদেশের বিভাগ ৮টি। খুব শীঘই প্রস্তাবিত আরও দু’টি বিভাগ কুমিল্লা ও পদ্মা যুক্ত হতে পারে।

বাংলাদেশের বিভাগগুলো হলো –
 ঢাকা
 চট্টগ্রাম
 রাজশাহী
 খুলনা
 বরিশাল
 সিলেট
 রংপুর
 ময়মনসিংহ
 কুমিল্লা (প্রস্তাবিত)
 পদ্মা (প্রস্তাবিত)

বাংলাদেশের বিভাগ পরিচিতি –


আমরা বাংলাদেশের ৮টি বিভাগ সম্পর্কে সংক্ষেপে পরিচিত হব। আসুন, জানা যাক।

ঢাকা বিভাগ

বাংলাদেশের ৮টি বিভাগের মধ্যে অন্যতম হচ্ছে ঢাকা বিভাগ। কারণ ঢাকা হচ্ছে বাংলাদেশের রাজধানী বা কেন্দ্রবিন্দু। ঢাকা শহর ১৬১০ সালে এবং ঢাকা বিভাগ ১৮২৯ সালে প্রতিষ্ঠিত হয়। ঢাকার ইংরেজি বানান পূর্বে Dacca (ঢাক্কা) ছিলো, এরপর পরিবর্তন করে এখন Dhaka (ঢাকা) দেওয়া হয়। ঢাকা বিভাগের আয়তন প্রায় ৩১,০৫১ (একত্রিশ হাজার একান্ন) বর্গ কি. মি.।

ঢাকার বিভাগের মধ্যে রয়েছে –
 ঢাকায় জেলা আছে – ১৩ টি
 ঢাকায় পৌরসভা আছে – ৫৮ টি
 ঢাকায় উপজেলা আছে – ১২৩ টি
 ঢাকায় ইউনিয়ন পরিষদ আছে – ১২৩৯ টি
 ঢাকায় ওয়ার্ড আছে – ৫৪৯ টি ।

ঢাকা বিভাগে কয়টি জেলা ও কী কী আছে?

ঢাকা বিভাগে মোট ১৩ টি জেলা আছে। তার মধ্যে ঢাকার সবচেয়ে বড় জেলা হলো – টাঙ্গাইল জেলা।

ঢাকা বিভাগের জেলাসমূহ –

  • ঢাকা জেলা
  • টাঙ্গাইল জেলা
  • কিশোরগঞ্জ জেলা
  • মাদারীপুর জেলা
  • গাজীপুর জেলা
  • গোপালগঞ্জ জেলা
  • মুন্সিগঞ্জ জেলা
  • নরসিংদী জেলা
  • নারায়ণগঞ্জ জেলা
  • ফরিদপুর জেলা
  • মানিকগঞ্জ জেলা
  • রাজবাড়ী জেলা
  • শরীয়তপুর জেলা

আর হ্যাঁ, ঢাকাকে ‘মেগাসিটি’ বলা হয়। কেননা, ঢাকাতে এক কোটিরও বেশি মানুষ বসবাস করে। সহজ ভাষায়, যদি কোনো এলাকায় বা অঞ্চলে এক কোটিরও বেশি মানুষ বসবাস করে, তাহলে সেই এলাকা বা অঞ্চলকে মেগাসিটি বলা হয়। বর্তমান বিশ্বে ২৬ টির মত মেগাসিটি আছে এবং তন্মন্ধে ঢাকা হচ্ছে ১১ তম।

চট্টগ্রাম বিভাগ

ঢাকার পর যদি কোনো রাজধানী হয়, তাহলে সেটা হবে চট্টগ্রাম। বাংলাদেশের দক্ষিণ-পূর্ব অঞ্চলে অবস্থিত ২য় বিভাগ চট্টগ্রাম। চট্টগ্রাম জেলা ১৬৬৬ সালে প্রতিষ্ঠিত হয়। ঢাকার মত, চট্টগ্রাম বিভাগ ১৮২৯ সালের প্রতিষ্ঠিত হয়। বাংলাদেশের সিলেট বিভাগও ১৯৯৫ সালের পূর্বে এই চট্টগ্রাম বিভাগের অন্তর্ভুক্ত ছিলো।

চট্টগ্রাম বিভাগের আয়তন ৩৪,৫২৯.৯৭ বর্গ কি.মি. প্রায়। (তথ্যসূত্র – উইকিপিডিয়া)

চট্টগ্রাম বিভাগের মোট ১১টি জেলা এবং ৯৯টি উপজেলা রয়েছে।

তার মধ্যে বান্দরবান, খাগড়াছড়ি ও রাঙ্গামাটি ৩টি পার্বত্য জেলাকে পার্বত্য চট্টগ্রাম নামে অভিহিত করা হয়।

চট্টগ্রাম বিভাগের ১১টি জেলার নাম –

 চট্টগ্রাম জেলা

 কুমিল্লা জেলা

 ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলা

 চাঁদপুর জেলা

 লক্ষ্মীপুর জেলা

 নোয়াখালী জেলা

 কক্সবাজার জেলা

 ফেনী জেলা

 খাগড়াছড়ি জেলা

 রাঙ্গামাটি জেলা

 বান্দরবান জেলা

চট্টগ্রামকে বাণিজ্যিক রাজধানীও বলা হয়। কারণ, বাংলাদেশের প্রধান সমুদ্র বন্দরগুলো চট্টগ্রামে অবস্থিত। আমাদের দেশের অধিকাংশ বৈদেশিক বাণিজ্য সংগঠিত হয় এসব সমুদ্র বন্দরের মাধ্যমেই। তারপর এই চট্টগ্রামকে কেন্দ্র করে অনেক ভারি শিল্পকারখানা গড়ে উঠেছে। সেজন্যই বাংলাদেশের বাণিজ্যিক রাজধানী চট্টগ্রাম।

রাজশাহী বিভাগ

বাংলাদেশের ৩য় বিভাগ হলো রাজশাহী বিভাগ। রাজশাহী বিভাগের আয়তন প্রায় ১৮,১৫৪ বর্গ কি. মি.। ১৭৭২ সালে রাজশাহী জেলা গঠন হয়।১৯৪৭ সালে রাজশাহী বিভাগ প্রতিষ্ঠিত হয়।

রাজশাহী বিভাগ ৮টি জেলা রয়েছে।

রাজশাহী বিভাগের ৮টি জেলার নাম –

 রাজশাহী জেলা

 নাটোর জেলা

 চাঁপাইনবাবগঞ্জ জেলা

 জয়পুরহাট জেলা

 পাবনা জেলা

 নওগাঁ জেলা

 বগুড়া জেলা

 সিরাজগঞ্জ জেলা

রাজশাহী বিভাগ রেশমের জন্য বিখ্যাত। এছাড়াও রাজশাহী আম, খেজুরের গুড়, সিল্কের শাড়ি এবং চমচমের জন্য বেশ জনপ্রিয়। কে কে রাজশাহীকে শান্তির শহর বলে থাকেন।

খুলনা বিভাগ

বাংলাদেশের বিভাগগুলোর মধ্যে ৪র্থ বিভাগ হচ্ছে খুলনা বিভাগ। খুলনা বিভাগ বাংলাদেশের দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চলে অবস্থিত।

আজকের এই খুলনা বিভাগ পূর্বে রাজশাহী বিভাগের অন্তর্ভূক্ত ছিলো। আর বরিশাল বিভাগ পূর্বে ঢাকা বিভাগের অন্তর্ভূক্ত ছিলো।
এরপর ১৯৬০ সালে পূর্বের রাজশাহী বিভাগের ‘কুষ্টিয়া, খুলনা ও যশোর’ এবং পূর্বের ঢাকা বিভাগের ফরিদপুর ও বরিশাল নিয়ে বর্তমানের খুলনা বিভাগ গঠিত হয়। তবে ১৮৮২ সালে খুলনা জেলা প্রতিষ্ঠিত হয়।

খুলনা বিভাগে ১০ টি জেলা ও ৫৯ টি উপজেলা রয়েছে।
খুলনা বিভাগের আয়তন ২২,২৮৫ বর্গ কি. মি.। খুলনা জেলা শহর থেকে মাত্র ৪৮ কি.মি. দূরে বাংলাদেশের দ্বিতীয় সমুদ্র অবস্থিত। বাংলাদেশের দ্বিতীয় সমুদ্রবন্দর হচ্ছে মোংলা সমুদ্রবন্দর।

খুলনা বিভাগের জেলার নাম –

  • কুষ্টিয়া জেলা
  • খুলনা জেলা
  • চুয়াডাঙ্গা জেলা
  • ঝিনাইদহ জেলা
  • নড়াইল জেলা
  • মাগুরা জেলা
  • বাগেরহাট জেলা
  • মেহেরপুর জেলা
  • যশোর জেলা
  • সাতক্ষীরা জেলা

খুলনা বিভাগ কিসের জন্য বিখ্যাত?

খুলনা বিভাগকে সাদা সোনার দেশ বলা হয়ে থাকে। এছাড়াও ম্যানগ্রোভ ফরেস্ট সুন্দরবন, নারিকেল, সন্দেশ, এবং গলদা চিংড়িসহ বিভিন্ন জিনিসের জন্যই খুলনা বিভাগ বিখ্যাত।

পাশাপাশি, খুলনার কুষ্টিয়ায় রয়েছে BRB CABLE Tower (চল্লিশ তালা), যা বাংলাদেশের উঁচু ভবনগুলোর মধ্যে একটি। তাছাড়াও, খুলনার বাগেরহাটে রয়েছে বিখ্যাত ষাট গম্বুজ মসজিদ। অর্থাৎ, খুলনায় অনেক নিদর্শনই রয়েছে।

বরিশাল বিভাগ

বাংলাদেশের ৫ম বিভাগ হচ্ছে বরিশাল। বরিশাল বিভাগের তাদের স্পেশাল ভাষায় জন্য বিখ্যাত; সরি, একটু মজা করলাম। সব বিভাগেই আলাদা আলাদা ভাষা আছে। সব আঞ্চলিক ভাষাই সম্মানজনক। এই বিভাগ টি আগে ঢাকা এবং খুলনা বিভাগের ভিতরে ছিল। ১৯৯৩ সালে বরিশাল বিভাগ নিজস্ব বিভাগে পরিণত হয়। তবে ১৭৯৭ সালে বর্তমান বরিশাল জেলাটি ‘বাকেরগঞ্জ’ নামে প্রতিষ্ঠিত হয়েছিল।

বরিশাল বিভাগের আয়তন প্রায় ১৩,৬৪৪ বর্গ কি.মি.। বরিশাল বিভাগে জেলা আছে ৬টি এবং উপজেলা আছে ১০ টি।

বরিশাল বিভাগের জেলাগুলোর নাম –

  • বরিশাল জেলা
  • পিরোজপুর জেলা
  • পটুয়াখালী জেলা
  • ভোলা জেলা
  • ঝালকাঠি জেলা
  • বরগুনা জেলা।

বাংলাদেশের দক্ষিণাচলে অবস্থিত সমুদ্রের উপকূলবর্তী বরিশাল বিভাগ প্রাকৃতিক সৌন্দর্যে ভরপুর। বরিশাল বিভাগের প্রত্যেকটা জেলাতেই অসংখ্য দর্শনীয় চিত্তাকর্ষক স্থান রয়েছে।

বরিশাল কেনো বিখ্যাত?

বরিশাল আমড়া’ -এর কারণে জনপ্রিয়। এছাড়াও বরিশালে রয়েছে বাংলাদেশের বিভিন্ন অপরূপ মনোমুগ্ধকর পর্যটন স্পট। তার মধ্যে কিছু পর্যটন স্পট হচ্ছে –

  • কুয়াকাটা সমুদ্র সৈকত
  • মনপুরা দ্বীপ
  • দূর্গা সাগর
  • সোনারচরসহ প্রভৃতি।

সিলেট বিভাগ

বাংলাদেশের ৬ষ্ঠ বিভাগ হচ্ছে সিলেট বিভাগ। সিলেটের অবস্থান বাংলাদেশের উত্তর-পূর্বাঞ্চলে। সিলেট বিভাগ ১৯৯৫ সালে ৪টি জেলা নিয়ে গঠিত হয়। তবে সিলেট জেলা ১৭৭২ সালেই গঠিত হয়। সিলেটকে অনেকে দ্বিতীয় লন্ডন, আবার অনেকে মাজার শরীফের দেশও বলে থাকেন।

সিলেট বিভাগের আয়তন প্রায় ১২,৫৯৫ বর্গ কি. মি.। সিলেট বিভাগে ৪টি জেলা ও ৩৮টি উপজেলা রয়েছে।

সিলেট বিভাগের জেলাগুলোর নাম –

  • সিলেট
  • মৌলভীবাজার
  • সুনামগঞ্জ
  • হবিগঞ্জ

সিলেট কেনো বিখ্যাত?

সিলেটকে ২য় লন্ডন বলার কারন হচ্ছে, এই বিভাগের বেশিরভাগ মানুষই দেশের বাহিরে থাকেন এবং বৈদেশিক মুদ্রার প্রধান উৎস হচ্ছে সিলেট। এছাড়াও সিলেট বিভাগে বিভিন্ন দর্শনীয় স্থান রয়েছে, যেমন – জাফলং, শ্রীমঙ্গল চা-বাগান, মাধবকুণ্ড ইত্যাদি। পাশাপাশি সিলেট গ্যাসের খনি, কমলালেবু, চাপাতা, সাতকড়াসহ বিভিন্ন জিনিসের জন্য খুবই জনপ্রিয়।

বাংলাদেশের অর্থনীতিতে সিলেট জেলা সবচেয়ে বেশি অবদান রাখছে। বাংলাদেশের অর্থনীতির প্রায় ২৩% এ জেলা অবদান রাখছে।

রংপুর বিভাগ

বাংলাদেশের ৭ম বিভাগ রংপুর। ২০১০ সালে রংপুর বিভাগ প্রতিষ্ঠিত হয়। রংপুর বিভাগে ৮ টি জেলা ও ৫৮ টি উপজেলা রয়েছে। রংপুর বিভাগের আয়তন প্রায় ১৬,৩১৭ বর্গ কি.মি. ।

রংপুর বিভাগের জেলা সমূহ –

  • রংপুর
  • দিনাজপুর
  • কুড়িগ্রাম
  • গাইবান্ধা
  • ঠাকুরগাঁও
  • নীলফামারী
  • পঞ্চগড়
  • লালমনিরহাট

[ays_quiz id=’16’]

রংপুর কেনো বিখ্যাত?

রংপুর তামাক, ইক্ষু, হাড়িভাঙা আম ইত্যাদির জন্য বিখ্যাত।

ময়মনসিংহ বিভাগ

বাংলাদেশের সর্বশেষ ও ৮ম বিভাগ হলো ময়মনসিংহ বিভাগ। ২০১৫ সালে ময়মনসিংহ বিভাগ প্রতিষ্ঠিত হয়। ময়মনসিংহ বিভাগের এর আয়তন মোট ১০,৪৮৫ বর্গ কি. মি.।

ময়মনসিংহ বিভাগে ৪টি জেলা ও ৩৪টি উপজেলা রয়েছে।

ময়মসিংহ বিভাগের জেলাগুলোর নাম –

  • ময়মনসিংহ জেলা
  • জামালপুর জেলা
  • নেত্রকোণা জেলা
  • শেরপুর জেলা

শেষকথা –

সবগুলো বিভাগ সম্পর্কে একদম সংক্ষেপে লিখা হয়েছে। আপনারা যারা যে বিভাগে বসবাস করেন, সেই বিভাগ সম্পর্কে ২ লাইন কমেন্ট করতে পারেন। বিকাল ৪টায় নামাজের পর কুইজ শুরু হবে এবং এই লিখার নিচেই লিংক দেওয়া হবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published.