টমেটোর ১৫টি উপকারিতা জেনে নিন

লাল টুকটুকে টমেটো দেখলে যেনো চোখ সরানো যায়না। টমেটো দেখতে যেমন চমৎকার, খেতেও তেমন সুস্বাদু। আর পুষ্টিগুণের কথা আস্তে আস্তে বলছি, পড়তে থাকুন।

টমেটো বারমাসি পাওয়া গেলেও, শীতকালে এর জনপ্রিয়তা অনেকটা বেড়ে যায়। কারণ, আমাদের দেশের শীতকালীন আবহাওয়া টমেটো চাষের জন্য উপযোগী। এটি ভিটামিন A এবং C সমৃদ্ধ একটি সবজি। জানা যায় যে, আমেরিকায় খ্রিষ্টজন্মের প্রায় ৫০০ বছর আগে থেকেই টমেটোর চাষ শুরু হয়।

পুষ্টিগুণের দিক দিয়ে টমেটোতে রয়েছে নানা ধরনের ভিটামিন, পটাশিয়াম, কপার, ক্রোমিয়াম, কোলিন, আয়রন, ফসফরাস, ফোলেট ও ম্যাগনেসিয়ামসহ আরো অনেক উপাদান। রান্না ছাড়াই কাঁচা-পাকা টমেটো খেলে সবচেয়ে বেশি কাজে দেয়। তবে রান্না করে খেলেও অনেক উপকার পাওয়া যায়। এছাড়াও টমেটো আমাদের শরীর সুস্থ-সবল রাখতেও গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখে।

খাবারের তালিকায় কেনো টমেটো রাখবেন ও আমাদের শরীরের জন্য টমেটোর ভূমিকা কী? চলুন বিস্তারিত জেনে নিই –

১. এজমা নিয়ন্ত্রন –

টমেটোর মধ্যে থাকা Vitamin A ও লাইকোপেন আমাদের শরীরের এজমা নিয়ন্ত্রণে ভূমিকা রাখে।

২. হাড় গঠন ও রক্ষণাবেক্ষণ –

টমেটোতে রয়েছে ক্যালসিয়াম। যা আমাদের হাড়ের জন্য ভালো এবং তা অস্টিওপরোসিস রোগ প্রতিরোধ করে। যাদের হাড় দুর্বল, তারা টমেটো খেতে পারেন। এতে দেহে হারের ঘনত্ব বৃদ্ধি পাবে।

৩. ক্যান্সার প্রতিরোধ –

টমেটোতে রয়েছে প্রচুর পরিমাণে অ্যান্টি-অক্সিডেন্ট, যা দেহের ফ্রি রেডিকেলস দূর করে ক্যানসারের ঝুঁকি কমিয়ে ফেলে। তাই ক্যানসার প্রতিরোধে টমেটো সহায়ক।

৪. DNA রক্ষা করে –

আমাদের DNA কোনোভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হয়, ক্যানসারে আক্রান্তের ঝুঁকি অনেকটা বেড়ে যায়। টমেটো মানবদেহের DNA কে ক্ষতির হাত থেকে রক্ষা করে। তাই নিয়মিত টমেটো খাওয়ার অভ্যাস করুন।

৫. প্রদাহ দূর করে –

টমেটো শরীরের TNF-Alpha এর মাত্রা নিয়ন্ত্রণ রাখে। TNF-Alpha শরীর জ্বালাপোড়ার একটি অন্যতম কারণ। এক্ষত্রে পাকা টমেটোর জুস শরীরের প্রদাহ দূর করে ফেলে।

৬. ত্বক ও চোখ ভালো রাখে –

আমাদের ত্বক ও চোখের জন্য টমেটো খুবই উপকারী। টমেটোতে থাকা বিটা-ক্যারোটিন ও লাইকোপেন চোখ ভাল রাখতে সাহায্য করে। সবসময় টমেটো খেলে ত্বক ভেতর থেকেই পরিস্কার হয়ে উঠবে। আর আমাদের ত্বক ভালো রাখতে হলে রূপচর্চা করার চেয়ে ভেতর থেকে যত্ন নেয়াটাই ভালো।

৭. ভিটামিনের চাহিদা পূরণ –

কাঁচা টমেটো রোজ এক কাপ সালাদ করে খেলে, দেহে ভিটামিনের প্রায় ১/২ ভাগ চাহিদা পূরণ হয়ে যায়।

৮. ডায়াবেটিস নিয়ন্ত্রণ –

যারা ডায়াবেটিস এ ভুগছেন, তাদের জন্য টমেটো খুবই উপকারী। নিয়মিত টমেটো খেলে শরীরে শর্করার মাত্রার ভারসাম্য ঠিক থাকে।

৯. রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা –

টমেটোতে Vitamin ‘C’ রয়েছে যা রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়াতে সাহায্য করে। তাছাড়া এটি ত্বকের জন্যও খুব উপকারী।

১০. ব্রেইন/হার্ট ব্লক রোধ –

টমেটো রক্ত জমাট বাঁধতে বাঁধা দেয় এবং রক্ত সঞ্চালনে সাহায্য। আর, রক্ত জমাট বাঁধার কারণে অনেকসময় হার্ট ব্লক হতে পারে। তাই যদি আপনার ব্লক বা স্ট্রোকের ঝুঁকি থাকে, তাহলে নিয়মিত টমেটো খেতে পারেন।

১১. রক্তচাপ নিয়ন্ত্রণ –

টমেটোতে পটাশিয়াম রয়েছে, যা আমাদের রক্তচাপের মাত্রা নিয়ন্ত্রণে রাখে। তাই যারা উচ্চ রক্তচাপে ভুগছেন, তাদের সবসময় টমেটো খাওয়া উচিত।

১২. ওজন কমায় –

শরীরের অতিরিক্ত ওজনে বিভিন্ন রোগ-শোক দেখা যেতে পারে। আর যারা যারা ওজন কন্ট্রোলে রাখতে চান, তারা নিয়মিত টমেটো খেয়ে দেখতে পারেন। তাই প্রতিদিন অন্তত ১ গ্লাস টমেটোর রস পান করুন ওজন কমাতে।

১৩. কোলেষ্টেরল নিয়ন্ত্রণ –

টমেটোতে রয়েছে অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট লাইকোপেন, যা আমাদের শরীরের কোলেস্টেরলের পরিমাণ নিয়ন্ত্রণ করে। এছাড়াও লাইকোপেন মেটাবলিজম নিয়ন্ত্রণ করে। যার ফলে রোজ টমেটো খেলে বাড়তি মেদ ঝরে যায়।

১৪. ফুসফুস ভালো রাখে –

রোজ ২টি করে টমেটো খেলে আমাদের ফুসফুস নিয়ে নিশ্চিন্ত থাকলেই হবে। কারণ, এক গবেষণায় দেখা গেছে যে টমেটো ফুসফুসকে দূষিত বায়ু থেকে রক্ষা করে। সেই সাথে নিয়মিত টমেটো খেলে ফুসফুসের কার্যক্ষমতা বৃদ্ধি পায়।

১৫. মোটকথা সুস্থসবল থাকতে নিয়মিত টমেটো খেতে পারেন। অনেকে ফেসিয়াল রূপচর্চার জন্যেও টমেটো ব্যবহার করে থাকেন।

শেষকথা –

আমি নিজেও টমেটো খেতে খুব পছন্দ করি। আমাদের শরীরের জন্য সবজির কোনো বিকল্প নেই। আর টমেটো হলে তো কথাই নেই। তাই টমেটো খান আর সুস্থসবল জীবনযাপন করুন।

এরকম পোষ্ট সবার আগে পেতে বেল আইকনে সাবস্ক্রাইব করুন ও আমাদের ফেসবুক পেইজে জয়েন হোন।

Leave a Comment

somproti.com

FREE
VIEW